Status

একজন চাইল্ড এবিউজ ভিকটিম, আর আমার একটি আকুতি!

আমি তখন ক্লাস সেভেনে পড়ি। ছোটবেলায় কোন পুরুষ মানুষ আমাকে কখনোই মলেষ্ট করার সাহস বা সুযোগ পায়নি। কারণ আমি দিন রাত ২৪ ঘন্টাই আমার সাতজন মামা-খালা দ্বারা বেষ্টিত থাকতাম। যারা আমাকে লিটারেলি নিজের সন্তানের মতো আগলে রাখতেন। কিন্তু মেয়ে মানুষও যে মলেষ্ট করতে পারে, এটা খুব সম্ভবত তাদের ধারনাতে ছিলো না। যার ফলে, কিশোর বয়সে খালার বান্ধবী কর্তৃক জীবনে প্রথম এবং শেষবারের মতো যৌন নিগৃহীত হয়েছিলাম। Continue reading

Status

ভোজনরসিক বাঙ্গালির ভূরিভোজন!

DSC_5305

বাঙ্গালীর উৎসবের অভাব নাই। সেই উৎসব উপলক্ষ্যে ভূড়ি ভোজেরও কোন শেষ নাই। বাঙ্গালীর প্রায় সকল উৎসবে ভোজের আয়োজন দেখলে মনে হবে, উৎসবটা এখানে গৌন। ভোজনটাই মূখ্য। যদিও ‘ভোজ’ থেকে ‘ভোজন’ এসেছে, কিন্তু আক্ষরিক অর্থ বিচার করলে দুটোতে কোন মিল পাওয়া যায় না। ভোজন মানে খাওয়া। সেটা পোলাও কোর্মা হতে পারে, হতে পারে এক গ্লাস পানীয়ও। অপরদিকে ভোজ মানে হচ্ছে খাবার দাবারের এলাহী কারবার! সেখানে পোলাও কর্মা এবং পানীয়ের কোন অভাব থাকে না। তাই সঙ্গতকারনেই, ভোজ ও ভোজন আমাদের সংস্কৃতির দুটি অবিচ্ছেদ্য অংশ।

ধর্মীয় উৎসবে খাওয়া, সাংস্কৃতিক উৎসবে খাওয়া, সামাজিক উৎসবে খাওয়া। কোন উৎসবেই খাবার অনুপস্থিত নয়। তবে সামাজিক উৎসবে ভোজের আয়োজনটা অন্য সমস্ত উৎসবকে যেন ছাড়িয়ে যায়। ছোটবেলা থেকেই দেখছি, বর-কণের চাইতেও বিয়ে বাড়ীর প্রধান আকর্ষন হচ্ছে ভোজন। বিয়ের অনুষ্ঠানে গিয়ে বর বা কণেকে না দেখেই ফিরে আসতে দেখেছি অনেককে, কিন্তু না খেয়ে ফিরে আসা? কাভি নেহি। Continue reading

Status

বিসিএসের একটি প্রশ্ন ও কিছু সম্ভাব্য উত্তরঃ

confused guy

পরীক্ষার্থীর উপস্থিত বুদ্ধি যাচাইয়ের জন্য এবারের বিসিএসে প্রশ্ন এসেছেঃ

বিয়ে বাড়িতে গিয়ে যদি আপনার পোশাক হঠাৎ ছিড়ে যায়, তখন আপনি কী করবেন?

ক. ছেঁড়া অংশটুকু ধরে রাখবেন।
খ. বিয়ে বাড়ি ছেড়ে চলে যাবেন।
গ. যেমন আছে তেমন রাখবেন।
ঘ. আপনার কাছাকাছি যারা আছে তাঁদের পরামর্শ নিবেন।

প্রশ্নকর্তার চিন্তাশক্তির সীমাবদ্ধতা দেখে পুরাই হতাশ হলাম। আমি তার জাগায় থাকলে আরো যে সব অপশনগুলো যোগ করতামঃ

ঙ. বর/কনের কাছে গিয়ে বলবেন আপনাকে নতুন একটা জামা দেবার জন্য।

চ. কি করবেন সেটা নির্ভর করছে কি ছিড়েঁছে তার উপর। যদি পাঞ্জাবী ছিড়েঁ তাহলে একরকম ব্যবস্থা, যদি পায়জামা ছিড়েঁ তাহলে আরেকরকম। আর যদি আন্ডারওয়্যার ছিড়েঁ…এহেম… সেক্ষেত্রে কোন ব্যবস্থা না নিলেও অসুবিধা নাই।

ছ. তৎক্ষনাৎ বাসায় চলে যাবেন। যাবার আগে কাজী সাহেবকে অনুরোধ করবেন আপনি ফিরে না আসা পর্যন্ত বিয়ে পড়ানোটা স্থগিত রাখতে।

জ. বিয়া বাড়িতে ছিঁড়া কাপড় পইড়া যাইতেও আমার সমস্যা নাই, আপনে নিজে যদি ছেঁড়া জায়গার দিকে বারবার চোরের মত না তাকান তাইলে অন্যকেউ সেইটা খেয়ালও করবে না। ধরেন তারপরেও কেউ খেয়াল কইরা ফেললো, তখন চমকে উঠার ভান করে বলতে হবে- হায় হায় এইটা কখন ছিঁড়লো…??? (স্বত্বঃ শুভ কামাল)

ঝ. সিলাই জানলে নিজেই সুইঁ-সুতা দিয়ে জোড়াতালি লাগানোর চেষ্টা করবেন বিয়ে বাড়ির ওয়াশরূমে গিয়ে। (সুইঁ-সুতা কই পাইবেন জিগায়েন না। জামার জায়গামতো ছিড়ঁলে সুইঁ-সুতা ভূতে যোগাইবে।)

ঞ. ছিড়াঁ অংশটুকুতে জোড়াতালি লাগাবার চেষ্টা তো করবেনই না, উল্টো ফ্যাশনের নতুন ট্রেন্ড হিসেবে আপনি ঐ ছেড়াঁ জায়গার আশে পাশের অংশগুলোও ইচ্ছে করে টেনে টেনে ছিড়ঁবেন।

ট. মানুষজন আপনার ছেড়াঁ জামা দেখলে বিব্রত হতে পারে, আপনাকে নিয়ে হাসাহাসি করতে পারে। এই ভয়ে, আপনি নিজে দেখেই যেচে তাদের কাছে গিয়ে গিয়ে বলবেন, – “দেখেন, আমার জামাটা না একটু আগে হঠাৎ করে ছিড়েঁ গেলো!”

ঠ. কোন একটা ই-কমার্স সাইটে ফোন করে বলবেন আপনার একটা জামা চাই এবং আধাঘন্টার মধ্যে বিয়ে বাড়ির এড্রেসে মাল ডেলিভারী দিতে বলবেন। ক্যাশ অন ডেলিভারী। ঐ আধাঘন্টা বিয়ে বাড়ির কোন অন্ধকার চিপা চুপায় কোনমতে ঘাপটি মেরে থাকবেন।

https://www.facebook.com/proloyhasan/posts/10153165816757220

Status

ব্রেসিকোম, পাজির পা ঝাড়া আর একটা আত্নভোলার গল্প!

4416085273_187261f2be_oসুলগ্না,

তোমার দাদার শোবার ঘর দেখে অনুমান করলাম, তোমার শোবার ঘরের জানালা দিয়েও অনায়াস আকাশটাকে দেখা যায় না। দেখতে হলে রীতিমতো কসরৎ করতে হয়। তবেই না এক চিলতে আকাশের দেখা মেলে। তাও আবার কালে ভদ্রে।

Continue reading

Status

সুলগ্নাদের বাবার গল্প

father and daughter silhouetted against dusk sky looking up at stars, United Kingdom, Scotland, Wester Ross

ধর্মে হিন্দু, জাতে ক্ষত্রিয় মেয়েটি দেখতে ছোটবেলায় গাট্টা গোট্টা ছিলো বেশ। দেখলাম সমুদ্রের বালিয়াড়ীতে ফ্রক পড়ে একটি মেয়ে ভ্রু কুঁচকে দিগন্তের দিকে তাকিয়ে আছে। বেশ অনেক বছর আগে বলেই হয়তো ছবিটা ঝাপসা লাগছিলো খানিকটা।

Continue reading

Status

একটি ইউক্যালিপটাস গাছের পাতা

gold

 

সেন্টজর্জ হাসপাতালের বেডে শুয়ে আছে প্রভা। সেন্ট জর্জ হাইস্কুলে ইয়ার টেনে পড়ে। খুব সুন্দর, গোলগাল মায়া কাড়া চেহারা, অত্যন্ত রুপবতী। মায়ের মত লাল টকটকে হয়েছে গায়ের রং।
প্রভা প্রচন্ড স্পর্শকাতর একটা মেয়ে। অত্যন্ত আবেগপ্রবন। হঠাৎ করে কিছুদিন আগে, একটা পারিবারিক কারনে ওর মারাত্নক নার্ভাস ব্রেক ডাউন হয়। রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা অর্ধেকে নেমে আসে। তড়িঘড়ি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয় ওকে।
Continue reading

Status

আম্মু, অবুঝ মেয়ে আমার!

মৃআমাকে নিয়ে অনেক টেনশন আমার বুড়ি মেয়েটার। আমার কাছে একদম বাচ্চা মেয়েদের মত বায়না ধরে। প্রতিদিন তাকে ফোন করতে হবে, প্রতিদিন ই-মেইল করতে হবে আর প্রতিদিন এসএমএস করতে হবে। আমার সবকিছু তাকে জানানো চাই ই চাই। আমি খানিকটা বিরক্ত হয়ে বলি, ‘তুমি যে কি বল না আম্মু! এত সময় কোথায় আমার? তাছাড়া, যে কোন একটা করলেই তো হয়। ফোন, ইমেইল, ম্যাসেজ সব একদিনে করতে হবে কেন?’ কিন্তু কে শোনে কার কথা?

Continue reading