ধূপানের উপকারিতা

ধূমপান করার একটা বিশাল উপকারিতা আছে।

আজ বিকেলে কলিগদের সাথে নীচে নেমে সিগারেট ধরালাম। তারা জানে আমি মৌসুমী স্মোকার. শীতকাল ছাড়া সিগারেট খাই না। তাই ডিসেম্বর মাস আসলেই তারা আমাকে রীতিমতো ডাকাডাকি করে তাদের সাথে সিগি খেতে নিচে নিয়ে যায়। তো খেয়াল করলাম, সিগারেট খাবার সময় তারা পরস্পরের সাথে বিস্তর আলাপ আলোচনা করে। এইসব আলোচনার একটা বিশাল ফায়দা আছে। অনেক ক্রিটিকাল ইস্যু, করপোরেট পলিটিক্স এমনকি ব্যাক্তিগত কিংবা পারিবারিক ইস্যুও সলভ হয়ে যায়! ধূমপান না করলে তারা হয়তো কখনই এভাবে একজোট হয়ে গঠনমূলক আলোচনা করার সুযোগ পেতো না। ইনফ্যাক্ট যারা ধূমপান করে না, তারা তো সিগারেটের ব্রেক নেয় না।

ইউনি লাইফে দেখতাম, পোলাপাইনরা সিগারেট খাবার ব্রেকে দুনিয়ার যত ফাউ জিনিসপাতি নিয়ে প্যাচাল পাড়তো। কোন মেয়ে দেখতে হট, কে কারে লাগাইসে, কে কার সাথে ডাবল টাইমিং করসে, কে কার জিএফ/বিএফের সাথে বেডে যায় খালি এইসব আজাইরা কথাবার্তা! প্রথমটায় ব্রিবত হতাম > তারপর অভ্যেস হয়ে গেলো > তারপর বোর লাগা শুরু করলো > এবং সবশেষে বিরক্ত হওয়া শুরু করলাম। আমার মনে হতো, ছেলেদের সিগারেটের ব্রেক মানেই এইসব। (ইভেন দেশের বাইরেও মেয়েদেরও দেখেছি তারাও তাদের সিগারেটের ব্রেকে মুটামুটি একই বিষয় নিয়েই প্যাচাল পারে। তাদের কথাবার্তা আরো অনেক অনেক বেশী বোরিং!) তাই ওদের সিগারেট ব্রেকে ওদের থেকে একশত হাত দূরে থাকতাম।

কিন্তু পেশাগত জীবনে এসে দেখলাম, ঐ একই সময়ে ছেলেরা খুব প্রডাকটিভ হয়ে যায়। তারা নিজেদের ক্যারিয়ার নিয়ে ডিসকাশ করে, কিভাবে আরো বেটার পারফরমেন্স করা যায় সেটা নিয়ে আলোচনা করে, কিভাবে নিজের প্রেমের সম্পর্কটা কিংবা স্ত্রীর সাথে মনোমালিন্য ঠিকঠাক করা যায়, সেটা নিয়ে ভাবে।

আমি চিন্তা করলাম, বছরের ১১ মাস এদের সাথে সিগি না খেয়ে অনেক অনেক কিছু মিস করেছি আমি। ভেতরের অনেক খবরই আমি জানতাম না, অনেক কিছুই তারা সামনা সামনি দুই মিনিট আলোচনা যতটা সহজে সুরাহা করতে পেরেছে, আমি ততটা সহজে পারি নাই।

তাই ভাবছি, সিগারেট না খেলেও শীতের পরেও তাদের সাথে নীচে নেমে তদের আলাপে শরিক হবো। ইনডিরেক্ট স্মোকিং করবো। (ধূমপায়ীদের আশে পাশে থাকলে অধূমপায়ীদেও স্মোকিং হয়। সেইটাকে ইনডিরেক্ট স্মোকিং বলে!)

এই ঘটনার আরেকটা শিক্ষা হলো, যে সব মানুষদের সাথে আপনার দিনের বেশীরভাগ সময় কাটে (যেমনঃ পরিবারের সদস্য, অফিসের কলিগ কিংবা ক্লাসের সহপাঠি), তাদের সাথে কোন না কোন ছুতায় কয়েকমিনিট সামনা সামনি খোলাখুলি আলাপ করার চান্স পেলে, তাদের সাথে আপনার সম্পর্ক কখনই খারাপ হবে না, কিংবা মনোমালিন্য বা ভুল বোঝাবুঝি হবে না।

 

 

স্বপ্নদুয়ারে রেজিষ্ট্রেশন না করেও আপনার ফেসবুক আইডি দিয়েই মন্তব্য করা যাবে। নীচের টিক চিহ্নটি উঠিয়ে কমেন্ট করলে এই পোষ্ট বা আপনার মন্তব্যটি ফেসবুকের কোথাও প্রকাশিত হবে না।

টি মন্তব্য

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *